গুলি ছুড়ে উল্লাস করলেন আ.লীগ ... | jamunanews24.com

যমুনা নিউজ: মেয়র বলে কথা ! তাই ভাতিজির বিয়েতে প্রকাশ্যে নিজের...

বাংলা  
 অপরাধ
গুলি ছুড়ে উল্লাস করলেন আ.লীগ নেতা !
Published : Friday, 13 January, 2017 at 11:29 PM,  Read :  170  times.
গুলি ছুড়ে উল্লাস করলেন আ.লীগ নেতা !যমুনা নিউজ: মেয়র বলে কথা ! তাই ভাতিজির বিয়েতে প্রকাশ্যে নিজের শটগান দিয়ে গুলিবর্ষণ করে আনন্দ-উল্লাস করেছেন কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমুল ইসলাম ছানা। ভিডিও দেখে তাৎক্ষণিকভাবে অনেকে বৈধ কিনা কমেন্টস করলে উত্তরে বলেন, ভেড়ামারায় আমরাই আইন।  

শুক্রবার সন্ধ্যায় বিয়ের অনুষ্ঠানে পরিবারের অন্য সদস্যরা যখন আনন্দ করছিলেন, তখন নিজের শটগান তুলে আকাশের দিকে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়েন তিনি। এ সময় শিশুরাও তার আশপাশে ছিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে এ ঘটনা সরাসরি প্রচারিত হয়েছে।

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র শামীমুল ইসলাম ছানার বড় ভাই সাইফুল ইসলাম রানার মেয়ে টিসার বিয়েতে এ ঘটনা ঘটে। বিয়ে বাড়িতে আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে পৌর মেয়র ছানাও আনন্দ-উৎসবে অংশ নেন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব ও শুভানুধ্যায়ীরা এ সময় আড্ডায় মেতে ওঠেন। কেউ কেউ নাচ-গানেও অংশ নেন।

ফেসবুক লাইভে দেখা যায়, এক মেয়ে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সাধারণ সম্পাদক ছানাকে গুলি এগিয়ে দিচ্ছে ও তিনি শটগান দিয়ে গুলি ছুড়ছেন। পরপর দুই রাউন্ড গুলি ছোড়েন তিনি। গুলি ছোড়ার সময় তার হাত কেঁপে ওঠে।

ফেসবুকের ওই ভিডিওচিত্রে আরও দেখা গেছে, তার হাতে একটি পিস্তলও ছিল। পরে সেটি তিনি এক ছেলের হাতে দিয়ে দেন।

ফেসবুকে গুলিবর্ষণের দৃশ্যটি সরাসরি প্রচার করেন পৌর মেয়র ছানার আত্মীয় সাদমান আল সাবিক। তিনি এ পোস্টের শিরোনাম দেন 'রয়েল ওয়েডিং' বা 'রাজকীয় বিয়ে'।

এ ব্যাপারে ভেড়ামারা পৌর মেয়র শামীমুল ইসলাম ছানা সাংবাদিকদের বলেন, 'আমার লাইসেন্স করা শটগান থেকে বিয়ের অনুষ্ঠানে গুলি ফুটিয়ে কিছুটা আনন্দ করেছি। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছিল।

তবে ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শান্তি মণি চাকমা বলেন, আমি অনুমতি দেওয়া বা না দেওয়ার কেউ নই। মেয়র তার নিজের নামে লাইসেন্স করা শটগান থেকে বিয়ের অনুষ্ঠানে গুলি ফুটিয়েছেন। কী শর্তে তিনি অস্ত্রের লাইসেন্স নিয়েছেন, সেটি তারই ভালো জানার কথা।

ভিডিওটি রাতেই অনেকের নজরে আসে। ওই ভিডিও দেখে তাৎক্ষণিকভাবে একজন মন্তব্য করেন, এভাবে গুলি ছোড়া বেআইনি। এর উত্তরে লেখা হয়, ভেড়ামারায় আমরাই আইন।

এ বিষয়ে ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর হোসেন খন্দকারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, কোনোরকম ফায়ারিং করতে গেলে সংশ্লিষ্ট থানার অনুমতির প্রয়োজন হয়। তিনি ফায়ারিংয়ের কোনো অনুমতি দেননি। এ ছাড়া ফায়ারিং করতে হলে চাঁদমারিতে যেতে হবে।

jamunanews24.com/a.rahim/nayon/13 jan 2017

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �