A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: imagejpeg(assets/shares/bn/news-11350c3ae817005a8ecdeafbd48b75ae.jpeg): failed to open stream: Permission denied

Filename: controllers/Reader.php

Line Number: 352

Backtrace:

File: /var/www/html/old_jamuna/application/controllers/Reader.php
Line: 352
Function: imagejpeg

File: /var/www/html/old_jamuna/application/controllers/Reader.php
Line: 66
Function: call_user_func_array

File: /var/www/html/old_jamuna/index.php
Line: 295
Function: require_once

শরণার্থীকে লাথি মারা সেই নারী... | jamunanews24.com

শরণার্থীকে লাথি মারা সেই নারী... | jamunanews24.com

যমুনা নিউজ: শিশুসহ দুই শরণার্থীকে লাথি মারার ঘটনায় বিশৃঙ্খল আ...

বাংলা  
 আন্তর্জাতিক
শরণার্থীকে লাথি মারা সেই নারী সাংবাদিকের সাজা
Published : Friday, 13 January, 2017 at 6:12 PM,  Read :  151  times.
শরণার্থীকে লাথি মারা সেই নারী সাংবাদিকের সাজাযমুনা নিউজ: শিশুসহ দুই শরণার্থীকে লাথি মারার ঘটনায় বিশৃঙ্খল আচরণের দায়ে হাঙ্গেরির এক নারী সাংবাদিককে তিন বছরের অবেক্ষাধীন সাজা দিয়েছে সেদেশের আদালত। এর আগে এ ঘটনায় চাকরিও গেছে পেত্রা লাসলো নামে ওই নারী ক্যামেরা পারসনের।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, বৃহস্পতিবার হাঙ্গেরির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর সোজেগেদের একটি আদালতে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে উপস্থিত ছিলেন ওই সাংবাদিক। আদালত সাজা ঘোষণার পর কাঁদোকাঁদো হয়ে তিনি বলেন, রায়ের বিরুদ্ধে তিনি আপিল করবেন।

ভয় ও হামলার শঙ্কায় এমনটা করেছিলেন উল্লেখ করে লাসলো বলেন, ‘সবকিছুই ঘটেছে মাত্র দুই সেকেন্ডের মধ্যে। প্রত্যেকেই চিৎকার করছিল। আর সেটা অত্যন্ত ভীতিকর অবস্থা ছিল।’

২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে রোসজকি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওইসময় হুড়োহুড়িরত শরণার্থীদের লাথি মারেন ওই টিভি সাংবাদিক। এ দৃশ্যের ভিডিওটি ফেসবুকে প্রকাশের পর সেটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইতে থাকে বিশ্বব্যাপী।
শরণার্থীকে লাথি মারা সেই নারী সাংবাদিকের সাজাসেসময় সার্বিয়া সীমান্ত সংলগ্ন রোসজকি গ্রামে শরণার্থীদের নিবন্ধন শিবিরের কাছে সংবাদ সংগ্রহে যান সাংবাদিকরা। এর মধ্যে হাঙ্গেরির এন১টিভি’র ক্যামেরাপারসন পেত্রা লাসজলোও ছিলেন।

পুলিশের নির্ধারিত লাইনে এক পর্যায়ে শরণার্থীরা হুড়োহুড়ি শুরু করে। এ সময় এক শিশুকে কোলে নিয়ে দৌড়ানোরত এক ব্যক্তিকে ল্যাং মেরে ফেলে দেন পেত্রা। কিছুক্ষণ পর দৌড়ানোরত অপর এক শিশুকে লাথি মারেন তিনি।

ঘটনাটি উপস্থিত অন্যান্য টেলিভিশন সাংবাদিকদের ক্যামেরায় স্পষ্টরূপে ধরা পড়ে। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার পর পরই এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিকভাবে পেত্রাকে চাকরিচ্যুত করে টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ।



jamunanews24.com/Momin/13 January 2017

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �