A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: imagejpeg(assets/shares/bn/news-8c10f4923dd9a1bb3ea9d8b41c6f40e3.jpeg): failed to open stream: Permission denied

Filename: controllers/Reader.php

Line Number: 352

Backtrace:

File: /var/www/html/old_jamuna/application/controllers/Reader.php
Line: 352
Function: imagejpeg

File: /var/www/html/old_jamuna/application/controllers/Reader.php
Line: 66
Function: call_user_func_array

File: /var/www/html/old_jamuna/index.php
Line: 295
Function: require_once

আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতেই হবে | jamunanews24.com

আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতেই হবে | jamunanews24.com

যমুনা নিউজ: বাংলাদেশের রিজার্ভ থেকে চুরি হয়ে যাওয়া অর্থের বাক...

বাংলা  
 জাতীয়
আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতেই হবে
Published : Thursday, 1 December, 2016 at 4:25 PM,  Read :  73  times.
আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতেই হবেযমুনা নিউজ: বাংলাদেশের রিজার্ভ থেকে চুরি হয়ে যাওয়া অর্থের বাকি টাকা আরসিবিসিকে (রিজাল কর্মশিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন) ফেরত দিতেই হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। 

বৃহস্পতিবার নিজ মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ফিলিপাইন ও বাংলাদেশের বন্ধুত্ব অত্যন্ত গাঢ়, সে কারণে এই টাকা ফেরত দিতে ফিলিপাইন সরকার বাংলাদেশ সরকারকে যাবতীয় সহযোগিতা করবে বলে আমাদেরকে কথায়-কাজে ও বডি ল্যাঙ্গুয়েজে বুঝিয়েছে।

তিনি আরো জানান, টাকা আদায়ে ফিলিপাইন সরকার আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে। দেশটির সরকার আমাদের হয়েই সেখানে ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এটার আরেকটা কারণ হচ্ছে, এখানে ফিলিপাইনের ক্রেডিবিলিটি ও তাদের ফাইন্যান্সিশিয়াল ইনস্টিটিউশনের ক্রেডিবিলিটি জড়িত।

তিনি বলেন, আজকের পৃথিবীতে অ্যান্টি মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটা প্রয়োগ করার ব্যাপারেও সকল রাষ্ট্র অত্যন্ত সচেতন। সে কারণেই এটার গুরুত্ব বুঝে ব্যবস্থা নিচ্ছে তারা।

মন্ত্রী বলেন, সিনেটের শুনানির কারণে আরসিবিসির দায় নিয়ে সেখানে আলোচনা হয়েছিল। সেই শুনানি শেষ হওয়ার আগেই ফিলিপাইনে নির্বাচন হয়েছিল। সেই শুনানি পুনরায় শুরু করতে সিনেট সভাপতির কাছে প্রস্তাব দিলে তিনি তার অফিসকে তাৎক্ষণিক নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান মন্ত্রী।

সিনেট সভাপতিকে উদ্বৃত করে মন্ত্রী বলেন, তিনি অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলেছেন, অন্যায়ভাবে কেউ লাভবান হোক, তাদের সরকার তা হতে দিবে না। অন্যায়ভাবে কারো অর্জিত আয়ের টাকা কেউ রেখে দিবে সেটাও ফিলিপাইন সরকার হতে দেবে না।

ফিলিপাইনের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা হওয়ার কথা থাকলেও সেখানকার একটি শহরে সন্ত্রাসী হামলার কারণে রাষ্ট্রপতি ওই প্রদেশে চলে গেলে সেটা বাতিল হয়ে যায় বলে জানান আনিসুল হক।

এরপর ফিলিপাইনের অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সেখানেও আমরা আমাদের দাবি উত্থাপন করি। আমাদের দাবির সবচেয়ে বড় বিষয় ছিল, ফিলিপাইনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই ঘটনায় অনেক নিয়ম ভাঙায় আরসিবিসিকে প্রশাসনিকভাবে দায়ী করেছিল, তাদের ওপরে ২১ মিলিয়ন ইউএস ডলার জরিমানা করেছিল। তার বিরুদ্ধে আরসিবিসি কোনো আপিল না করে জরিমানা মেনে নিয়ে ১০ মিলিয়ন ইতোমধ্যে পরিশোধ করেছে। বাকী ১১ মিলিয়নও পরিশোধ করবে।

তিনি বলেন, আমাদের বক্তব্য ছিল এই জরিমানা এবং জরিমানা পরিশোধ করার মাধ্যমে পরিষ্কারভাবে প্রমাণিত হয়েছে, আরসিবিসি তার অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছে। সে কারণে তাদেরকে সম্পূর্ণ টাকা বাংলাদেশকে ফেরত দিতে হবে। এটাকে ফিলিপাইনের অর্থমন্ত্রী অত্যন্ত যুক্তিসঙ্গত বলেছেন। এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আরসিবিসিকে এই টাকা পরিশোধ করার জন্য যত রকম আইনি এবং অন্যান্য প্রশাসনিক চাপ দেওয়া দরকার, সেটা দিয়ে টাকা আদায় করতে বাংলাদেশের হয়ে তাদের সরকার ও মন্ত্রণালয় লড়বে।

সেই দেশের আইন প্রতিমন্ত্রী এবং মামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আইনজীবীদের সঙ্গেও দেখা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ফিলিপাইনে এ ব্যাপারে সরকার ও আরসিবিসি দুটো মামলা করেছে। একটিতে ৬ জন কর্মকর্তা, আরেকটিতে দুই-তিনজন আসামি আছেন।

তিনি বলেন, আমি সেখানকার আইন প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে আমি দেখা করেছি। আইনমন্ত্রী অন্য কাজে ব্যস্ত ছিলেন। চিফ প্রসিকিউটর ও মামলাগুলো যারা দেখছেন তাদের সঙ্গে আমরা মামলার ব্যাপারে কথা বলি। আমরা সেখানেও আমাদের যুক্তি তুলে ধরি। আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতেই হবে।

কী পরিমাণ টাকা ফেরত আসবে- এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমার কথা ৬৬ মিলিয়নই আসবে। প্রথম কথা হচ্ছে, আমরা ফিলিপাইনের আইনি লড়াই অব্যাহত রেখে যাব, আমরা সরকারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করছি, তারা যদি টাকা আদায়ে অন্য কোনো পন্থা করে, সেখানেও আমরা সর্বাত্মক সহযোগিতা করব।

আরসিবিসির সাম্প্রতিক বিবৃতির বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, দায় স্বীকারের পর যদি বলে, আমরা দায় স্বীকার করছি না। তাহলে সেটা গ্রহণযোগ্য নয়। তারা কেবল দায় স্বীকারই করেনি, দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর তার জন্য নির্ধারিত সাজা হিসেবে ২১ মিলিয়ন ইউএস ডলারের ১০ মিলিয়ন দিয়ে দিয়েছে।

তিনি বলেন, আরসিবিসি ভয় পাচ্ছে যে, তাদেরকে টাকাটা দিতে হবে। সেই জন্যই অনেক রকম গান তারা গাওয়া শুরু করেছে। এখানে বাংলাদেশ ব্যাংকের কে কী দোষ করেছে, এটার সঙ্গে সেটা সম্পৃক্ত নয়। তার কারণ হচ্ছে, চোরাই মাল এবং সেটা কোথায় গিয়ে ল্যান্ড করেছে, চোরাই মাল-জানা স্বত্ত্বেও তারা কী করেছে-সেটাই আরসিবিসির দোষ। সেই কারণেই আমরা বলছি, আরসিবিসিকে টাকা ফেরত দিতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের কে দোষী সেটা ভিন্ন ব্যাপার। ভিন্ন ব্যাপারের ব্যবস্থা ভিন্নভাবে করা হবে।

jamunanews24.com/Faruque/Roushan/manik/01 November 2016

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �