হত্যা ও গুম আতঙ্কে ভাটারার নূ... | jamunanews24.com

যমুনা নিউজ: হত্যা ও গুম আতঙ্কে ভুগছেন রাজধানীর ভাটারা এলাকার ...

বাংলা  
 অপরাধ
হত্যা ও গুম আতঙ্কে ভাটারার নূর বানু
Published : Thursday, 1 December, 2016 at 3:19 PM,  Read :  592  times.
হত্যা ও গুম আতঙ্কে ভাটারার নূর বানুযমুনা নিউজ: হত্যা ও গুম আতঙ্কে ভুগছেন রাজধানীর ভাটারা এলাকার খিলবাড়ীরটেকের নূর বানু (৭৪) নামে এক বৃদ্ধা। এ বিষয়ে ভাটারা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছেন তিনি। জিডি নাম্বার ১৭০।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রভাবশালীদের ছত্রচ্ছায়ায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে রাজধানীর ভাটারার হেলাল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। এ বাহিনীর সদস্যরা জমি দখল, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসাসহ সবধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িত। এদের হাতে নির্যাতিত সাধারণ মানুষ এখন প্রতিকারের জন্য প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন, হেলাল ও জালাল ভাটারা এলাকায় যে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে এর প্রতিবাদ করলেই সাধারণ মানুষকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি ও গুমের শিকার হতে হচ্ছে। ফলে ভুক্তভোগীরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এলাকাবাসীর ভাষ্য, ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে হেলাল ও জালাল বাহিনীর সদস্যরা। তারা সবধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে গেছেন।

এই বাহিনীর শিকার মোসাম্মৎ নূর বানু বলেন, আমার স্বামী মো. মোজাফফর হোসেন এক সন্তান রেখে ৩৩ বছর আগে মারা গেছেন। তার মৃত্যুর পর আমার সৎ ছেলে এনায়েত হোসেন ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নবীনগর থানার কাদৈর গ্রামে বাড়ি ও সম্পত্তি এককভাবে ভোগদখল করছে। আমার স্বামীর রেখে যাওয়া ১৮ বিঘা সম্পত্তি সৎ ছেলেমেয়েরা মিলে জাল দলিলের মাধ্যমে আমাদেরকে বঞ্চিত করে বিক্রি করে দেয়। তখন আমার একমাত্র ছেলে মো. মোবারক হোসেন ছিল নাবালক। এখন সে প্রতিবাদ করতে গেলে তাকে মৃত্যুর হুমকি দেয় তার সৎ ভাইয়েরা। বর্তমানে আমার এবং ছেলে মোবারকের নামে আমার স্বামীর রেজিস্ট্রি করা দানপত্রমূলে প্রাপ্ত বাড়ি (দাগ নং ১০৭৬ খিল বাড়ির টেক, ভাটারা, গুলশান) ৩৫ বছর ধরে ভোগদখল করে আসছে। কিছুদিন ধরে তারা আমার ছেলে এবং পরিবারে অন্য সদস্যদের খুন করে হলেও আমাদের এই বাড়িটি দখল করে নেবে বলে হুমকি দিয়েছে।

নূর বানু বলেন, গত ৯ নভেম্বর বেলা ১২টার দিকে আমার সৎ পুত্র মো. আনোয়ার হোসেনের নির্দেশে তার ভাগিনা সোহেল, ভাতিজা হেলাল হোসেন ও জালাল হোসেনসহ একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়ি দখল করতে আসে। এ সময় আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় তারা। এতে আমাদের পরিবারের সদস্য গুরুতর জখম হয়। জীবন বাঁচাতে আমরা দৌড়ে এলাকার একটি মসজিদে গিয়ে আশ্রয় নেই। তখন জোহরের নামাজ চলছিল। নামাজ শেষে মুসল্লিদের সহায়তায় আমরা বাড়িতে ফিরে আসি।

ইতোপূর্বে একাধিকবার উল্লিখিত ব্যক্তিরা আমাদেরকে হত্যার হুমকি দেয়ায় ভাটারা থানায় তাদের নামে জিডি করেছি ।
এ বিষয়ে জানার জন্য ভাটারা থানার ও্সি নুরুল মুত্তাকিনের সঙ্গে যোগাযোগ কারা হলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে এড়িয়ে যান।

jamunanews24.com/sushanto/anis/manik/01 Dec 2016

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �